ও'মের সূত্রটি ব্যাখ্যা করুন - আস্ক পড়ুয়া
0 পছন্দ 0 জনের অপছন্দ
20 বার প্রদর্শিত
"পদার্থবিজ্ঞান" বিভাগে করেছেন (359 পয়েন্ট)

এখানে Mahi ভাইয়া উত্তর দিয়েছেন তবে আমি ভালোভাবে বোঝার জন্য বিস্তারিত চাই  

1 উত্তর

0 পছন্দ 0 জনের অপছন্দ
করেছেন (31 পয়েন্ট)

বিশিষ্ট জার্মান বিজ্ঞানী জর্জ সায়মন ও’ম (বা ওহম) (Georg Simon Ohm) ১৮২৬ খ্রিস্টাব্দে ফুরিয়ারের তাপ পরিবহণ সংক্রান্ত গবেষণার উপর ভিত্তি করে বতর্নীর তড়িৎ পরিবহণের গাণিতিক ব্যাখ্যা প্রদান করেন, যেটি তার নাম অনুসারে ওহম এর সূত্র (Ohm’s law) নামে পরিচিত।

উষ্ণতা ও অন্যান্য ভৌত অবস্থা অপরিবর্তিত থাকলে, কোনো পরিবাহীর মধ্য দিয়ে তড়িৎপ্রবাহমাত্রা ওই পরিবাহীর দুই প্রান্তের বিভব-পার্থক্যের সমানুপাতিক এবং পরিবাহীর রোধের ব্যস্তানুপাতিক।

সূত্রটিকে গাণিতিক ভাষায় নিম্নক্তভাবে প্রকাশ করা যায়-

ওহমের সূত্রের গাণিতিক রূপ

এখানে,

  • R হলো পরিবাহীর রোধ বা রেজিস্টেন্স যা একটি সমানুপাতিক ধ্রুবক যার একক ওহম (Ω)
  • V হলো পরিবাহীর দুই প্রান্তের বিভব পার্থক্য যার একক ভোল্ট এবং
  • I হলো পরিবাহীর মধ্য দিয়ে প্রবাহিত কারেন্টের পরিমাণ যার একক এম্পিয়ার বা এম্প(A)
করেছেন (1.2k পয়েন্ট)
0 0
দু:খিত, এখানে কপি পেস্ট করে উত্তর দেওয়া নিষিদ্ধ। আপনি চাইলে এটা পড়ে যা বুঝেছেন তা নিজের মতো করে লিখে উত্তর দিতে পারেন।
ধন্যবাদ।

সম্পর্কিত প্রশ্নগুচ্ছ

1 টি পছন্দ 0 জনের অপছন্দ
2 টি উত্তর 11 বার প্রদর্শিত
0 পছন্দ 0 জনের অপছন্দ
0 টি উত্তর 7 বার প্রদর্শিত
0 পছন্দ 0 জনের অপছন্দ
1 উত্তর 9 বার প্রদর্শিত
0 পছন্দ 0 জনের অপছন্দ
2 টি উত্তর 46 বার প্রদর্শিত
0 পছন্দ 0 জনের অপছন্দ
1 উত্তর 26 বার প্রদর্শিত
"আস্ক পড়ুয়ায় স্বাগতম" আস্কপড়ুয়া একটি জ্ঞানমূলক ওয়েবসাইট।এর মূল উদ্দেশ্য হচ্ছে জ্ঞানের আলোকে ছড়িয়ে দেওয়া।এই কমিউনিটি তে যারা যুক্ত তারা জ্ঞানার্জনে উন্মুখ।যেকোনো বিষয় সম্পর্কে সঠিক তথ্য প্রদানে পড়ুয়া বোর্ড সহযোগিতা প্রদানে তৎপর।

889 টি প্রশ্ন

1.2k টি উত্তর

1.1k টি মন্তব্য

129 জন সদস্য

...